ফেসবুক গ্রুপে চালু হলো মোডারেটর রোল

ফেসবুক গ্রুপ মোডারেটর

আপনি যদি গ্রুপের বর্তমান অ্যাডমিন হয়ে থাকেন, তাহলে আপনি গ্রুপের সহকারী অ্যাডমিন এবং অ্যাকটিভ মেম্বারদের মোডারেটর বানাতে পারেন।

গ্রুপ মোডারেটর বানানোর সুবিধাঃ
(১) মোডারেটর অ্যাডমিন-কে গ্রুপ থেকে রিমুভ/ব্লক করতে পারে না। যেসব অ্যাডমিন গ্রুপ হ্যাক হবার ভয়ে বাড়তি অ্যাডমিন বানাতে চাইতেন না, তারা নির্ভয়ে গ্রুপ মোডারেটর বানাতে পারেন। মোডারেটর গ্রুপ ব্যবস্থাপনায় অ্যাডমিন-কে সাহায্য করবে।
(২) মোডারেটর অ্যাডমিন-এর গ্রুপ পোস্ট ও কমেন্ট ডিলেট করতে পারে না।
(৩) যেই গ্রুপে ওরিজিনাল ক্রিয়েটর অতীতে কোনো কারণে লিভ করেছে অথবা এফবি আইডি ডিসেব্লড হয়ে গেছে; সেই গ্রুপের বর্তমান মেইন অ্যাডমিনরা অন্যান্য অ্যাডমিনদের মোডারেটর বানিয়ে গ্রুপকে হ্যাকিং এর হাত থেকে বাঁচাতে পারেন। কারণ ওরিজিনাল ক্রিয়েটর ব্যতিত এক অ্যাডমিন অন্য অ্যাডমিন-কে গ্রুপ থেকে রিমুভ/ব্লক করতে পারে।

গ্রুপ মোডারেটর আর যা যা করতে পারে নাঃ
(১) মেম্বার-কে অ্যাডমিন/মোডারেটর বানানো।
(২) গ্রুপের কভার ফটো বদলানো।
(৩) গ্রুপ সেটিংস(গ্রুপের নাম, প্রাইভেসি সেটিংস ইত্যাদি) বদলানো।

গ্রুপ মোডারেটর যা যা করতে পারেঃ
(১) অ্যাপ্রুভ/ইগনোর/ব্লক মেম্বারশিপ রিকুয়েস্ট।
(২) অ্যাপ্রুভ/ইগনোর পেন্ডিং পোস্ট।
(৩) রিমুভ/ব্লক মেম্বার।
(৪) কোনো মেম্বার এর পোস্ট এবং কমেন্ট ডিলেট করা।
(৫) কোনো মেম্বার এর পোস্ট এর কমেন্ট সেকশন টার্ন অফ করা, যাতে আর কেউ নতুন কমেন্ট করতে না পারে।
(৬) কোনো পোস্ট পিন/আনপিন করা।
(৭) রিপোর্টেড পোস্ট রেখে দেওয়া বা ডিলেট করা।

যেভাবে গ্রুপ মোডারেটর বানাতে হয়ঃ
ওপেরা মিনি/ইউসি মিনি ব্রাউজার দিয়ে ফেসবুক ব্যবহার করে আপনি সাধারণ নিয়মে গ্রুপ মোডারেটর বানাতে পারবেন না। আর ফেসবুক লাইট অ্যাপ দিয়ে কোনোভাবেই মোডারেটর বানাতে পারবেন না।

মোডারেটর বানানোর পদ্ধতিঃ

পিসি/ল্যাপটপ থেকে

মোবাইল ভার্সন(touch.facebook.com) থেকে

অ্যান্ড্রয়েট অ্যাপ থেকে


বিঃদ্রঃ কোনো অ্যাডমিন-কে মোডারেটর বানাতে হলে তাকে আগে রিমুভ অ্যাস অ্যাডমিন করতে হবে।

Share This Post

Leave a Comment