শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রত্যয়ন পত্র

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রত্যয়ন পত্র | প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রত্যয়নপত্র | স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র pdf

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রত্যয়ন পত্র

এক নজরে দেখুন আর্টিকেল সূচি

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রত্যয়ন পত্র নিয়ে আজকের পোস্ট, আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই, আপনারা অনেকেই জানতে চান, স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র লেখার নিয়ম, স্কুলের প্রত্যয়ন পত্রের জন্য আবেদন কিভাবে করতে হয়, চলুন শুরু করা যাক।

জেনে ‍নিন প্রত্যয়ন পত্র কত প্রকার?

  1. চারিত্রিক সনদপত্র: এটি ব্যক্তির চারিত্রিক গুণগত মান নিয়ে জমা প্রদানের উদ্দেশ্যে প্রদান করা হয়।
  2. শিক্ষাগত যোগ্যতা সনদ: এই প্রকার পত্রে ব্যক্তির শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং শিক্ষা সংক্রান্ত তথ্য থাকে।
  3. ঠিকানার প্রমাণপত্র: যেটি ঠিকানার প্রমাণের জন্য ব্যবহৃত হয়।
  4. ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স: ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স এবং নিবন্ধনের প্রমাণপত্র।
  5. নাগরিকত্ব সনদ: ব্যক্তির নাগরিকত্ব অবলম্বন করার জন্য প্রদান করা হয়।
  6. ওয়ারিশ সনদ: ব্যক্তির উত্তরাধিকারীদের তার ওয়ারিশ হওয়ার প্রমাণপত্র।
  7. নিবন্ধন পত্র: কোনও নিবন্ধনযোগ্য বিষয়ে তথ্য যোগ্য হওয়ার প্রমাণপত্র।

স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র লেখার নিয়ম

স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র লেখার নিয়ম হতে পারে কিছু ধরনের কার্যক্রম অনুসারে পরিবর্তিত হতে পারে তবে মূলত একটি সাধারণ ফর্ম্যাট মেনে লেখা হয়। নিচে তা তুলে ধরা হলোঃ

প্রথম পর্যায়ে:

  1. পত্রের শীর্ষক:
    • এটা সাধারণভাবে “প্রত্যয়ন পত্র” হতে পারে।
  2. প্রবেশদ্বার:
    • এটা হতে পারে, “প্রধান শিক্ষক/শিক্ষিকা, [স্কুলের নাম],”
  3. প্রত্যয়ন পত্রের তারিখ:
    • সাধারণভাবে এটা লিখা হয়, “তারিখ: [তারিখ]”
  4. প্রত্যয়ন করা হয়েছে:
    • এখানে লিখতে হয়, “প্রত্যয়ন করা হয়েছে যে [নাম] [পিতা/মায়ের নাম] এবং [অভিভাবকের নাম] প্রথমের সহিত [স্কুলের নাম] প্রবেশ করতে সম্মত।”
  5. প্রত্যয়ন করার তারিখ:
    • এটা হতে পারে, “তারিখ: [তারিখ]”
  6. সাক্ষর:
    • এখানে প্রধান শিক্ষকের সাক্ষর এবং তারিখ লিখতে হয়।

দ্বিতীয় পর্যায়ে:

প্রত্যয়ন পত্রের দ্বিতীয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীর তথ্য লিখতে হয়। এটি নিম্নলিখিত হতে পারে:

  1. ছাত্র/ছাত্রীর নাম:
    • এখানে শিক্ষার্থীর নাম লিখতে হয়।
  2. পিতা/মায়ের নাম:
    • শিক্ষার্থীর পিতা/মায়ের নাম লিখতে হয়।
  3. জন্ম তারিখ:
    • এটা হতে পারে, “জন্ম তারিখ: [তারিখ]”
  4. ঠিকানা:
    • এখানে শিক্ষার্থীর ঠিকানা লিখতে হয়।
  5. স্কুলের নাম:
    • এটা হতে পারে, “[স্কুলের নাম]”
  6. শ্রেণী:
    • এখানে শিক্ষার্থীর শ্রেণীর নাম লিখতে হয়।
  7. অভিভাবকের নাম:
    • এটা হতে পারে, “[অভিভাবকের নাম]”

প্রত্যয়ন পত্রের একটি সাধারণ ফর্ম্যাট

প্রধান শিক্ষক
[স্কুলের নাম]
[ঠিকানা]
তারিখ: [তারিখ]

প্রত্যয়ন পত্র

প্রধান শিক্ষক, [স্কুলের নাম],

প্রত্যয়ন করা হয়েছে যে [নাম] [পিতা/মায়ের নাম] এবং [অভিভাবকের নাম] প্রথমের সহিত [স্কুলের নাম] প্রবেশ করতে সম্মত।

তারিখ: [তারিখ]

ছাত্র/ছাত্রীর নাম: [শিক্ষার্থীর নাম]
পিতা/মায়ের নাম: [পিতা/মায়ের নাম]
জন্ম তারিখ: [জন্ম তারিখ]
ঠিকানা: [ঠিকানা]
স্কুলের নাম: [স্কুলের নাম]
শ্রেণী: [শ্রেণীর নাম]
অভিভাবকের নাম: [অভিভাবকের নাম]

সাক্ষর: ___________________
তারিখ: [তারিখ]

উপরের উদাহরণ প্রত্যয়ন পত্রের একটি সাধারণ ফর্ম্যাট। এটি প্রতিটি স্কুলে পরিবর্তন হতে পারে, তাই সম্ভবত নিজেদের স্কুলের নির্দিষ্ট নিয়ম এবং ফর্ম্যাট অনুসরণ করা উচিত।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রত্যয়ন পত্র

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রত্যয়ন পত্র বলতে যেটা দেওয়া হয়, তা নিচে দেওয়া হলোঃ

এসএসসির সার্টিফিকেট এর দিকে খেয়াল করুন.

এসএসসির সার্টিফিকেট

তাহলে এবার পিডিএফ ও ওয়ার্ড ফাইলটি ডাউনলোড করে নিন, নিচের লিংক থেকে।

স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র ওয়ার্ড ফাইল | স্কুল প্রত্যয়ন পত্র word file এর ডাউনলোড লিংক।

  • স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র প্যাডের উপরের অংশে ম্যাধ্যমিক স্তরের প্রতিষ্ঠানের নাম, নিচে প্রতিষ্ঠানের ঠিকানা, স্থাপিত সন, ইআইআইএন নং, প্রতিষ্ঠান প্রধানের মোবাইল নম্বর লিখে নিতে হবে ।
  • প্রত্যয়ন পত্র অংশে  ড্যাশ জায়গা গুলিতে ছাত্রছাত্রীর নাম বাংলা ও ইংরেজীতে, পিতার নাম, মাতার নাম, গ্রাম, ডাকঘর, উপজেলা, জেলা, প্রতিষ্ঠানের নাম, ঠিকানা, শ্রেণি, রোল নং, জন্ম তারিখ গুলো লিখে নিতে  হবে
  • যাবতীয় তথ্য লেখা হয়ে গেলে স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র প্রিন্ট করে প্রধান শিক্ষকের নিকট হইতে  স্বাক্ষর ও সীল করে নিতে হবে । স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র স্বাক্ষর ও সীল নিয়ে প্রত্যয়ন পত্রটি যেকোন প্রয়োজনে ব্যবহার করতে পারবেন ।

স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র ওয়ার্ড ফাইল ডাউনলোড

স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র ওয়ার্ড ফাইল -স্কুল প্রত্যয়ন পত্র word file এর ডাউনলোড লিংক।

স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র pdf | School prottoyon potro format bangla

প্রত্যয়নপত্র মূলত কোন একটি প্রতিষ্ঠান দিয়ে থাকে। প্রত্যায়ন পত্র হলো আপনার নিজের চারিত্রিক আচার-আচরণ ইত্যাদির সনদপত্র। তাই আজকে আমরা প্রত্যয়ন পত্র কিভাবে লিখবেন নমূনা কপি সহ শেয়ার করবো। আসা করি তোমাদের উপকারে আসবে। আপনি চাইলে এই প্রত্যয়ন পত্র ডাউনলোড করে আপনার কাজে লাগাতে পারবেন। স্কুলের ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রত্যয়নপত্র, নিচে আমরা পিডিএফ ফাইল সহ দিয়ে দেবো।

স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র

এবার আপনি নিচের থেকে ডাউনলোড করে নিন।

স্কুলের প্রত্যয়ন পিডিএফ  ফাইল ডাউনলোড

আরও জানুনঃ 

Faq

প্রশ্ন ১: প্রত্যয়ন পত্রের কার্যক্রম কি?

উত্তর: প্রত্যয়ন পত্র পেতে আবেদন করে প্রধান শিক্ষক/শিক্ষিকা অনুমোদন দেয়। তারপর পত্র প্রিন্ট করে দেয়া হয়।

প্রশ্ন ২: প্রত্যয়ন পত্র প্রয়োজন কেন?

উত্তর: প্রত্যয়ন পত্র প্রয়োজন হয় যাতে স্কুল প্রবেশের জন্য অনুমতি প্রদান করা যায়।

প্রশ্ন ৩: প্রত্যয়ন পত্র পেতে কী কী দরকার?

উত্তর: প্রত্যয়ন পত্র পেতে দরকার হয়:

  • শিক্ষার্থীর নাম
  • পিতা/মায়ের নাম
  • জন্ম তারিখ
  • ঠিকানা
  • স্কুলের নাম
  • শ্রেণী

প্রশ্ন ৪: প্রত্যয়ন পত্র কিভাবে পেতে পারি?

উত্তর: প্রত্যয়ন পত্র পেতে স্কুলের প্রধান শিক্ষক/শিক্ষিকা কাছে আবেদন করতে হবে।

প্রশ্ন ৫: প্রত্যয়ন পত্রে কি কি তথ্য থাকবে?

উত্তর: প্রত্যয়ন পত্রে থাকবে:

  • শিক্ষার্থীর নাম
  • পিতা/মায়ের নাম
  • জন্ম তারিখ
  • ঠিকানা
  • স্কুলের নাম
  • শ্রেণী

শেষকথা

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রত্যয়ন পত্র লিখতে যদি আপনার কোন সমস্যা হয়, তাহলে কমেন্ট করবেন,আরও কিছু স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র লেখার নিয়ম বা স্কুলের প্রত্যয়ন পত্র সম্পর্কে কিছু জানতে চাইলে কমেন্ট করবেন, ধন্যবাদ, আসসালামু আলাইকুম।

Share This Post
About MainitBD Author

শিক্ষা জাতীর মেরুদন্ড! শিখবো, না হয় শেখাবো।

Leave a Comment