Wi-Fi -এর এর মানে কী? একটু বিস্তারিত জেনে নিন।

কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভাল।
টিউনটা করতে একটু দেরি হয়ে গেল।
তো আজকের টিউন শুরু করা যাক…
’ওয়াই-ফাই (Wi-Fi)’, বাস্তব জীবনে এর
অর্থ কি? কেউ কেউ এটাকে ‘Wireless
Fidelity’ বলে? কিন্তু সেটা কি সত্য?
তাহলে জেনে নিন ওয়াই-ফাই (Wi-Fi)-
এর পিছনের গল্প এবং আরো জেনে
নিন পুরো গল্পের মধ্যে ’Wi’ এবং ’Fi’ -এর
মানে কি?
Wi বা Fi বা ওয়াই-ফাই (Wi-Fi) নামটা
কোনো কিছুর জন্য হয় নাই। এমনকি এটি
কোনো আদ্যক্ষরা বা সংক্ষিপ্ত রুপ নয়।
এর পেছনে কোনো অর্থ নেই। Interbrand
এই ওয়াই-ফাই (Wi-Fi)-র লোগো তৈরি
করেছিল। Wi-Fi এর লোগো উদ্ভাবনের
পেছনে একটা মজার গল্প আছে। গল্পটা
হল…
ওয়াই-ফাই লোগোর পিছনের গল্পঃ
ওয়াই-ফাই লোগো উদ্ভাবনের একমাত্র
উদ্দেশ্য ছিল আন্তক্রিয়ার ধারনা
তৈরি করা এবং মার্কেটিং-এর
ব্যাপারে সাহায্য পাওয়া।
অফিসিয়াল ভিত্তিতে, ওয়াই-ফাই –
কে আসলে বলা হয় “IEEE 802.11b” এবং
পরবর্তীতে এদের sub-sequence হিসেবে
IEEE 802.11 a/b/c/g -এর মত নাম ব্যবহার হত।
অার, সেখানে একটি ’ব্র্যান্ড লোগো
নেম’ দরকার ছিল যা কিনা
ব্যবহাবকারীর ব্যবহারে, খুব সহজে মনে
রাখতে, এবং অনান্য কাজের জন্য
দরকার ছিল।
Wireless Fidelity (ওয়্যারলেস বিশ্বস্ততা :-
D) কি?
Wireless Fidelity অস্তিত্ব আসার কারণ হল
কিছু কর্মীরা উপলব্ধি করল যে ’ওয়াই-
ফাই’ টা আসলে কি সেটা বোঝানো
দরকার। তারপর থেকে এই ‘Wireless Fidelity’
শব্দটা অস্তিত্বে এসেছে। তারা
Wireless Fidelity কে Wi-Fi এর ফুল ফর্ম তৈরি
করে নাই কিন্তু। তারা শুধুমাত্র
ব্র্যান্ডিং বা মার্কেটিং-এ
বুঝানোর জন্য করেছিল। যতে মানুষ
ব্যাপারটাতে আকৃষ্ট হয়ে সেটা
ব্যবহার করে। তাই ব্র্যান্ডিং
কোম্পানি তাদের ট্যাগলাইন
হিসেবে “The Standard for Wireless Fidelity”
অন্তর্ভুক্ত করতে সম্মত হয়।
কিন্তু এটা ছিল একটা ভুল এবং এই ভুল
মানুষকে কন্ফিউশন বা বিভ্রান্তিকরে
ফেলেছিল। পরবর্তীতে যখন ওয়াই-ফাই
(Wi-Fi) সফল হয়ে ওঠে এবং যখন বৃহত্তর
কোম্পানি ঔ কোম্পানিকে
সমীপবর্তী করে বিপণন ও ব্যবসায় শুরু
করে, তখন থেকে ঠিক করা হয়
ট্যাগলাইন বাদ দেওয়া হবে।
ট্যাগলাইন বাদ হলেও Wireless Fidelity
শব্দটা থেকে যায়। এবং বেশির ভাগ
মানুষ এটাকে Wi-Fi এর পূর্নরুপ হিসেবে
মনে-প্রাণে গেথে নেয়।

Share This Post

Leave a Comment