রোহিঙ্গা মুসলিমদের গণহত্যা দেখুন! শরীর শিঁউরে উঠবেন! এত জগন্ন নির্যাতন পৃথিবী তে আর হয় নি!

রোহিঙ্গা মুসলিমদের গণহত্যা, মায়ানমারের আরাকান অঞ্চলে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর চলছে নৃশংস নির্যাতন।এত জগন্ন নির্যাতন পৃথিবী তে আর হয় নি ..

রাষ্ট্রের চরিত্র ও বৈশিষ্ট্যকে অস্বীকার করে সে দেশের সেনাবাহিনী, পুলিশ ও সীমান্তরক্ষীরা নির্বিচারে রোহিঙ্গা মুসলমানদের হত্যা করছে, অগ্নিসংযোগ করছে, তাদের তাড়িয়ে দিচ্ছে জন্মভূমি থেকে।

১৯৪৭ সালের দেশ বিভাগ থেকে ক্রমেই প্রবল হচ্ছে এই নির্যাতন। ১৯৭৮ সালে এই নির্যাতন নতুন মাত্রা অর্জন করে। ১৯৯০ সালে তা আরো বিস্তৃত হয়। এবার নির্যাতন-নির্মমতা এর আগের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে মায়ানমার সরকার স্বাধীনতার লগ্ন থেকেই নাগরিক অধিকার দিতে অস্বীকার করে আসছে।
রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর মায়ানমার সেনাবাহিনীর এই বর্বর হামলার ঘটনায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের চাপের মুখে পড়েছে মায়ানমার।

এ ব্যাপারে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে অনানুষ্ঠানিক আলোচনা হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাবে অনুষ্ঠিত এ আলোচনায় রোহিঙ্গাদের ওপর দমন-পীড়নের তীব্র নিন্দা জানানো হয়।

এদিকে রাখাইন রাজ্যে নির্যাতনের শিকার রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বিজিবি ও কোস্ট গার্ডের সতর্ক অবস্থান বহাল রয়েছে। রোহিঙ্গারা অনুপ্রবেশের চেষ্টা করলে তাদের পুশব্যাক করার সময় মানবিক আচরণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ।

নিউইয়র্কের একটি কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে, ১৭ নভেম্বর জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে রোহিঙ্গাদের ওপর পরিচালিত নিষ্ঠুরতা নিয়ে এক অনানুষ্ঠানিক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এ আলোচনার উদ্যোগ গ্রহণ করে। এ আলোচনায় মায়ানমারকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।

তবে এতে উপস্থিত বিভিন্ন শক্তিশালী দেশের প্রতিনিধিরা রোহিঙ্গা অধ্যুষিত রাখাইন রাজ্যে মায়ানমার সেনাবাহিনী চরমভাবে মানবাধিকার লংঘন করছে বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন।

মালয়েশিয়ার প্রতিনিধি বৈঠকে অভিমত ব্যক্ত করেছেন, এ অভিযানে বেসামরিক নারী ও শিশুদের ওপর চরম নিষ্ঠুরতা দেখানো হচ্ছে। যুক্তরাজ্য রোহিঙ্গাদের ওপর দমন-পীড়নের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। এছাড়াও নিউজিল্যান্ড, রাশিয়া, জাপান, ফ্রান্স, মিসর ও সেনেগালের প্রতিনিধিরা বৈঠকে উপস্থিত থেকে নিষ্ঠুরতার নিন্দা জানিয়েছেন।

রোহিঙ্গাদের ওপর মায়ানমারের নিষ্ঠুর আচরণে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান।

সম্প্রতি জাতিসংঘ উদ্বাস্তু সংস্থা এক বিবৃতিতে রাখাইন রাজ্যের ঘটনায় তাদের উদ্বেগের কথা জানিয়েছে। সংস্থাটি মায়ানমারের প্রতি নিষ্ঠুরতা পরিহারের আহ্বান জানিয়েছে।

এদিকে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে আলোচনা করতে রবিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পররাষ্ট্র সচিব মো. শহিদুল হকের সভাপতিত্বে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৈঠকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবি, কোস্টগার্ডসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

কর্মকর্তারা বলছেন, বৈঠকে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি সম্পর্কে সামগ্রিকভাবে পর্যালোচনা করা হয়।

মানবিক কারণে জাতিসংঘ সাহায্য সংস্থা ইউএনএইচসিআরের আহ্বানের বিষয়টি সরকার অবগত রয়েছে বলে বৈঠকে জানানো হয়।

তবে রোহিঙ্গা ইস্যুতে সরকারের অবস্থান অপরিবর্তিত আছে। রোহিঙ্গাদের নতুন করে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করতে দেয়া হবে না। কেউ বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করলে তাকে পুশব্যাক করা হবে। তবে পুশব্যাক করার সময় তাদের প্রতি মানবিক আচরণ করতে হবে।

রোহিঙ্গাদের ওপর বর্বরতার কারণে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মধ্যে বেশ চাপের মুখে পড়েছে। বিদ্যমান পরিস্থিতিতে মায়ানমারের সঙ্গে আগামী ২৩ ও ২৪ নভেম্বর দেশটির প্রশাসনিক রাজধানী নাইপিদোতে অনুষ্ঠেয় পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠক স্থগিত করেছে বাংলাদেশ।

ধারণা করা হচ্ছে, আন্তর্জাতিক চাপ থেকে নিজেদের রক্ষার কৌশল হিসেবে তড়িঘড়ি করে মায়ানমার মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ বাংলাদেশের সঙ্গে পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠকে বসার কৌশল নিয়েছিল।

কিন্তু বাংলাদেশ মনে করে, এত কম সময়ে বৈঠকের প্রস্তুতি নেয়া সম্ভব নয়। পাশাপাশি, বর্তমান পরিস্থিতিতে বৈঠক থেকে ভালো ফলাফল পাওয়ার সম্ভাবনাও কম।
সীমান্তরক্ষী বাহিনীর উপর হামলার পর ব্যাপক অভিযান শুরু করেছে বার্মার নিরাপত্তা বাহিনী। সৈন্যরা এসে রোহিঙ্গাদের প্রতিটি বাড়িতে তল্লাশি করছে। যদি সন্দেহ হয় তাদের কেউ রোহিঙ্গা সলিডারিটি অর্গানাইজেশনের সাথে জড়িত – তাহলে সে বাড়ি পুড়িয়ে দিতে দ্বিধা করছে না সৈন্যরা। বাড়ি থেকে কাউকে বের হতে দেখলেই গুলি ..
বার্মার মজলুম রোহিঙ্গা মুসলমানের কান্নায় পৃথিবীর আকাশ ভারি হয়ে ওঠছে। মুসলিম নারী-পুরুষ ও শিশুরা বাঁচাও বাঁচাও বলে আর্তচিৎকার করছে। মায়ানমারের বর্বর সরকার তাদের ওপর নির্যাতনের স্টিম রোলার চালাচ্ছে। হত্যা করছে অসংখ্য নিষ্পাপ শিশু, যুবক, বৃদ্ধাদের।

ভিডিওটি দেখুন>>

 

https://www.youtube.com/watch?v=lUBNPGlBXXo

Share This Post

Leave a Comment