তুষারধসে আফগানিস্তানে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩৭!

আফগানিস্তানে ব্যাপক তুষারপাতে ও তুষারধসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩৭ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ছাড়া আহত হয়েছে আরো অনেকে। খারাপ আবহাওয়ার কারণে ও তুষারধসে সড়ক বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আটকে পড়া লোকজনের কাছে পৌঁছতে উদ্ধারকারীদের বেগ পেতে হচ্ছে। দুর্গত স্থান থেকে লোকজনকে উদ্ধার ও সেখানে ত্রাণ পৌঁছাতে হেলিকপ্টার মোতায়েন করা হয়েছে।
সবচেয়ে প্রাণঘাতী ঘটনাটি ঘটেছে রোববার উত্তর-পূর্ব আফগানিস্তানের নুরিস্তান প্রদেশের দু’টি গ্রামে, এখানে তুষারধসে দু’টি গ্রাম পুরোপুরি চাপা পড়ে অন্তত ৫৩ জনের মৃত্যু ও বহু মানুষ নিখোঁজ হয়েছেন। নুরিস্তানের গভর্নর হাফিজ আবদুল কাইয়ুম এ খবর জানিয়েছেন।
এ ছাড়া নুরিস্তানের অন্যান্য জায়গায় তুষারের চাপে ছাদ ধসে আরো অন্তত পাঁচজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। তুষার ঝড়ে পাশের পর্বতময় বাদাখশান প্রদেশেও ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বাদাখশান প্রাদেশিক সরকারের মুখপাত্র নাভিদ ফ্রোতান জানিয়েছেন, শনি ও রোববার এ দুই দিনে তুষারধস, ছাদ ধসে ও গাড়ি দুর্ঘটনায় এখানে ১৯ জন নিহত ও ১৭ জন আহত হয়েছেন। প্রদেশটির অন্তত ১২টি জেলার সাথে কেন্দ্রের যোগাযোগ পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে এবং সেখানে পৌঁছানোর জন্য সরকারের পক্ষ থেকে চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি। আফগানিস্তানের প্রাকৃতিক দুর্যোগমন্ত্রী ওয়াইস আহমদ নুরিস্তান ও বাদাখশানে ১০৬ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। তবে বেসরকারি খবরে এ সংখ্যা ১৩৭ বলে জানা গেছে।
খারাপ আবহাওয়ার কারণে ও তুষারধসে সড়ক বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আটকে পড়া লোকজনের কাছে পৌঁছতে উদ্ধারকারীদের বেগ পেতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রাদেশিক কাউন্সিলের সদস্য খলিলুল্লাহ। দুর্গত স্থান থেকে লোকজনকে উদ্ধার ও সেখানে ত্রাণ পৌঁছাতে দু’টি হেলিকপ্টার মোতায়েন করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।
ব্যাপক তুষারপাতে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলও ভারী তুষারের চাদরে ঢাকা পড়েছে। এ কারণে রোববার সরকারি দফতরগুলো বন্ধ রাখতে বাধ্য হয় দেশটির সরকার। রানওয়েতে তুষার ও বরফ জমায় কাবুল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কার্যক্রমও বন্ধ রাখা হয়েছে। গজনি প্রদেশের মুখপাত্র জাভিদ সালাঙ্গি জানিয়েছেন, সেখানে প্রায় দুই মিটারে মতো তুষারপাত হয়েছে, কাবুল-কান্দাহার সড়কে আটকে পড়া ২৫০টি গাড়ি ও বাস উদ্ধার করেছে পুলিশ ও সেনারা।
কাবুলের উত্তরে সালাঙ্গ গিরিপথ আড়াই মিটার তুষারের নিচে চাপা পড়ায় তা বন্ধ হয়ে গেছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা রজ্জব সালাঙ্গি। এখানে শীতে জমে অন্তত দু’জন চালকের মৃত্যু হয়েছে। বহু মানুষ আটকা পড়ে আছেন, তাদের কাছে প্রয়োজনীয় খাবারও নেই। দেশজুড়ে আরো তুষারপাত ও তুষার ঝড়ের পূর্বাভাস দিয়েছেন আবহাওয়া কর্মকর্তারা।

Sorce-zoombangla

Share This Post

Leave a Comment