মাথা ব্যাথা কেন হয়?

মাথা ব্যথা কোন রোগ নয়, এটা একটা রোগের লক্ষণ বা উপসর্গ মাত্র। সাধারণতঃ যেসব কারণে মাথা ব্যথা হয় তা নিম্নরূপ।
১) মাইগ্রেন
(ক) কমন মাইগ্রেন (খ) ক্লাসিক মাইগ্রেন (গ) ক্লাসটার মাইগ্রেন।
২) টেনশন।
৩) মস্তিষ্ক ও মস্তিষ্কের রক্তনালী সংক্রান্ত
(ক) উচ্চ রক্তচাপ। (খ) সাব এরাক্‌নয়েড হেমোরেজ (মস্তিস্কে রক্তক্ষরণ) (গ) রক্তনালীর অস্বাভাবিকতা (ঘ) রক্তনালীর প্রদাহ (ঙ) মস্তিষ্কের পর্দার প্রদাহ (চ) মস্তিষ্কে প্রদাহ।
৪) মস্তিষ্কের ভিতরের চাপের পরিবর্তন
(ক) মস্তিষ্কের ভিতরের চাপ কমে গেলে (খ) মস্তিষ্কের ভিতরের চাপ বেড়ে গেলে {রক্তনালীতে রক্ত জমাট বেঁধে গেলে, ব্রেন টিউমার}।
৫) মাথায় আঘাত প্রাপ্ত হলে।
৬) অন্যান্য-
(ক) সাইনুসাইটিস্‌ (খ) চোখের গস্নুকোমা (গ) পচণ্ড কাশি (ঘ) আইচক্রিম খেলেও অনেক সময় হতে পারে। মাথা ব্যথা বিভিন্নভাবে হতে পারে। কারও কারও ভাল ঘুম না হলে মাথা ব্যথা হয়। অনেকের দিনের নির্দ্দিষ্ট সময়ে মাথা ব্যথা শুরু হয়। অনেকের প্রতিদি ব্যথা হয়। আবার অনেকের ব্যথা অনেকদিন পরে পরে শুরু হয়। মাথা ব্যথার তীব্রতা বিভিন্ন ক্ষেত্রে খুব বিভিন্ন রকম হতে পারে। অনেকের কম এবং অনেকের ক্ষেত্রে বেশি হয়। অনেকের মাথা ব্যথা হঠাৎ করে ভীষণ তীব্রভাবে শুরু হয়। তাই মাথা ব্যথা হলে তার কারণ খুঁজে বের করা জরুরি। মাথা ব্যথার কারণ খুঁজে বের করতে হলে মূলত রোগীর ইতিহাস ঠিকমত নিতে হবে। সঠিকভাবে রোগীর ইতিহাস নিলে এবং প্রয়োজনীয় কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করলে মাথা ব্যথার কারণ বের করা সম্ভব। মাথাব্যথার কারণ নির্ণয় করে সেভাবে চিকিৎসা নিলে চিকিৎসা সহজতর হয়।

Share This Post
About MainitBD Author

শিক্ষা জাতীর মেরুদন্ড! শিখবো, না হয় শেখাবো।

Leave a Comment