ইয়া আল্লাহ আপনি আমাদের হেফাজত করুন। বুক ফেটে যাচ্ছে। খুব কষ্ট লাগলো। ইসলাম কে সরানোর জন্য কত রকমের চেস্টা চলছে (সবাই পড়ুন)

.

.

পৃথিবী তে যতক্ষণ পর্যন্ত একজন আল্লাহ বলনে ওয়ালা বেক্তি থাকবে ততক্ষণ পর্যন্ত দুনিয়া কেয়ামত হবে না। (এটা আমার কথা না কোরআন-হাদিসের কথা)

.
ওরে যুবক কয়দিন আর বাহাদুরি করবা? মরনের পড় তোমার আমার মত যুবকের খবরও থাকবে না! এমন কোন দিন নাই বাসের নিচে, গাড়ির নিচে, পানির নিচে যুবকের লাশ নাই!

.

.

যারা সরকারের সামনে মুচকি হেসে পিছনে গিয়ে সরকার ও দেশের সম্পদ লুট করে আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ হতো আজকে তাবলিগের, হুজুর,ইমাম, ওলামা,মাশাইখ এর বয়ান শুননে তাড়া ঐ সম্পদ এখন লুট করে না! কাউ কে লুট করতেও দেয়না এবং সেই সম্পদ তাড়া আমানতের সাথে হেফাজত করে

আর সেই লোক দের সাথেই কি চরম অন্যয় করলো

.
আমরা যেই এলাকাতে থাকি ঐ খানে খুব শান্তি ছিলো আল্লাহর রহমতে। ঐ খানে কোন দিন মুর্তি পুজা হয় নি। তবে গত কয়েক মাস আগে ওই এলাকার ছোট্ট একটা অংশ আগুনে পুড়ে যায়। যার কারনে অনেকেই এলাকা ছেড়ে চলে যায়

.

এখন এখানে কথা হলো যেই যায়গাটাতে আগুন লেগে পুরে ছাই হয়ে যায়। ঠিক ওই জায়গাতে এই বছর হিন্দুরা বিশাল বড় মুর্তি পুজার ব্যবস্থা করেছে ভালো কথা।
.
মুল কথায় যাই,

.
তো কালকে আমাদের ঠিক ঐ এলাকারেই মসজিদ টাতে একদল তাবলিগ জামাত আসে মানে সব ছেড়ে
.
কয়েক দিনের জন্য আল্লাহর রাস্তায় সময় ব্যয় করে আল্লাহ কে রাজি খুশি করা জন্য ও আল্লাহর রাস্তায় মানুষ দের দাওয়াত দেয়া যেটা আমাদের কলিজার টুকরা প্রিয়ো নবিজি হযরত মুহাম্মদ (সা:) করেছিলেন ও দেখিয়ে গিয়েছেন।

.
তাড়া মানুষ কে ভালো ও শান্তির পথে ফিরিয়ে আনার জন্য সবার ধারে ধারে গিয়ে ইসলাম কে প্রচার করছে।
কারো কোন ক্ষতি তো করছে না! বরং এটাই সবচেয়ে উত্তম কাজ।

.

হাইরে কপাল পুরা তাদের কে এলাকার ভিতরেই ডুকতে দেয় নি

সুনে কলিজাটা কষ্টে ফেটেই যাচ্ছে।

.
এমনিতে আমাদের ২ টি ঈদ কোন দিন দেখছেন ইদের দিন পুলিশ মুসলিমদের পাহাড়া দিচ্ছে?
.
দেখেন নাই।

.
তবে ঐ এলাকাতে গিয়ে দেখলা মুর্তি পুজা তো করছেই তাড় উপর পুলিশ দিয়ে পুরো এলাকা ভর্তি।


সরকার থেকে আমাদের মুসলমানদের ইদে কোন টাকা বা বাজেট হয়?

.
হয় না।

তবে মুর্তি পুজাতে কোটি কোটি টাকা কেন বাজেট হয়?

.
ঐ এলাকাতে গিয়ে দেখলাম মুর্তি পুজা তো করছেই তাড় উপর পুলিশ দিয়ে পুরো এলাকা ভর্তি। তাবলিগ জামাতের মুসাফির ভাইয়েরা পড়ে অনেক রিকুয়েস্ট করলো কিন্তু পুলিশেরা বলে যে নিরাপত্তার সার্থে তাদের ডুকতে দেয়া যাবে না।

.
কিসের নিরাপত্তা?

.
তাদের বিশাল বড় মুর্তি পুজার নিরাপত্তা।

.
তখন জামাতের মুসাফির ভায়েরা ইমাম সাহেব কে ফোন দেয় তবে ইমাম সাহেবকে ঝারি দিয়ে না করে দেয়। শেষ পর্যন্ত তারা খুব কষ্ট পেলো। উপায় না পেয়ে ফিরে গেলো।

.
আমাদের ধর্ম ঠিক মত পালন করতে পারছি না।

.
ওরে যুবক কয়দিন আর বাহাদুরি করবা? মরনের পড় তোমার আমার মত যুবকের খবরও থাকবে না! এমন কোন দিন নাই বাসের নিচে, গাড়ির নিচে, পানির নিচে যুবকের লাশ নাই!

.
আজকে রোহিঙ্গা মুসলিমদের কে বেড় করে দিচ্ছে হিন্দু দের কেন বেড় করছে না অন্যান্য ধর্মের তাদেড় কে কেন বেড় করছে না? সুধু আমরা মুসলমানদের কেই কেন বেড় করছে?

ইসলামিক তাই লেখা কথা বার্তা তে যদি কোন ভুল হয়ে থাকে দয়াকরে বলবেন

.
আমি মুসলমান আমি এর চরম নিন্দা জানাই।
ইয়া আল্লাহ আপনি আমাদের কাফের মুশরিক দের অত্যাচার থেকে হেফাজত করুন। হয় তাদেড় হেদায়েত করুন নয়তো চিরোতরে ধংশ করে দিন।

.
শান্তি পুর্ন বাংলাদেশ চাই

Share This Post

Leave a Comment